ইতিহাসের এতো কাছে গিয়েও স্বপ্নভঙ্গ বাংলাদেশের

0

ভারতীয় ক্রিকেটাররা যখন উল্লাসে ব্যস্ত বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের তখন মাথায় হাত। বিশ্বাসই যেন হচ্ছিল না কি হয়ে গেল কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে। কারণ এই চিত্রের ঠিক উল্টোটি হওয়ার কথা ছিল। অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপের ফাইনালে ভারতকে ১০৬ রানে বেঁধে ফেলেও অবিশ্বাস্যভাবে বাংলাদেশ ম্যাচ হেরেছে ৫ রানে।

এশিয়া কাপ ক্রিকেট যেন বাংলাদেশের জন্য স্বপ্নভঙের এক টুর্নামেন্ট হয়ে দাঁড়িয়েছে। হোক সেটা বড়দের বা ছোটদের আসর। বড়দের আসরে তিনবার ফাইনালে গিয়েও শিরোপা জিততে পারেনি বাংলাদেশ। আর অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপে প্রথমবার ফাইনালে গিয়েছিলো জুনিয়র টাইগাররা।

শিরোপা জয়ের মঞ্চটা যেন তৈরীই ছিল বাংলাদেশের জন্য। আর সেই কাজটা করে গিয়েছিলেন টাইগার বোলাররা। টস জিতে ব্যাটিং নিয়ে কি ভুলটাই না করেছিল ভারত। বাংলাদেশের বোলারদের তোপের মুখে ৩২ ওভার ৪ বলে মাত্র ১০৬ রানে অলআউট হয় তারা।

ভারতের ব্যাটসম্যানরা এতোটাই বেকায়দায় পড়েছিল প্রথম চারের জন্য তাদের অপেক্ষা করতে হয়েছে ৪১ বল পর্যন্ত। ভারতের আট ব্যাটসম্যান ছুতে পারেন নি দুই অঙ্কের ঘর। মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী ও শামিম হোসেন নেন ৩টি করে উইকেট।

১০৭ রানের টার্গেট। ইতিহাস যেন হাতছাড়া দূরত্বে। কিন্তু এ কি অবস্থা। শুরুটা ভারতের চেয়েও খারাপ বাংলাদেশের। ভারতের ৪ উইকেট পড়েছে ৫৩ রানে। আর ১৬ রান জমা করতে না করতেই ৪ উইকেট হারিয়ে বসে বাংলাদেশ।

জুনিয়র টাইগারদের এক একটি রান যেন মাথা থেকে এক একটি বোঝা সরে যাওয়ার মতো অবস্থা। বড়দের মতো ছোটদেরও শট খেলার প্রবণতা দেখা গেছে। দল বিপেদর মধ্যে জেনেও শট খেলার লোভ সামলাতে না পেরে উইকেট দিয়ে আসতে হয়েছে।

শেষ পর্যন্ত ৩৩ ওভার টিকেছিল বাংলাদেশের ইনিংস। ১০১ রানে অলআউট হয়ে এশিয়া কাপ জিততে না পারার আক্ষেপ রয়েই গেলো আকবর আলীদের।

Share.

Comments are closed.