চিনি নিয়ে অস্থিরতা এখনও কাটেনি বাজারে

0

চিনি নিয়ে অস্থিরতা এখনও কাটেনি বাজারে। কোথাও আছে, কোথাও নেই। সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে আটা-ময়দাসহ প্রায় সব ধরণের নিত্যপণ্যের দাম। বিক্রেতাদের দাবি সব ধরণের শাক-সবজি আর মাছের সরবরাহ পর্যাপ্ত থাকায় দাম কিছুটা কমেছে। তবে বিপরীত বক্তব্য ক্রেতাদের।

বেশ কয়েকদিন ধরেই চড়া দামে বিক্রি হলেও চিনির উপস্থিতি বাজারে অনেকটাই অদৃশ্য, মিলছে না যার সমাধান। চালের বাজারেও উর্ধমুখী। বস্তা প্রতি বেড়েছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা। এদিকে সাধারণের নাভিশ্বাস যেন আরো বাড়িয়ে দিয়েছে আটা ও ময়দা; যা বস্তা প্রতি বেড়েছে ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা। আগের চেয়ে মাছের সরকরাহ বাড়ায় দাম কছে বলে দাবি বিক্রেতাদের। তবে ক্রেতারা বলছেন, ভিন্ন কথা। ব্রয়লার মুরগি ও খাসির মাংসের দাম অপরিবর্তিত থাকলেও গরুর মাংস ব্যবসায়িরা বলছেন, কেজিতে তাদের ক্ষতি হচ্ছে ৫০ টাকা। এমন পরিস্থিতির মধ্যে কিছু স্বস্তি ডিমের দামে। যা কমে দাঁড়িয়েছে ডজন প্রতি ১২৫ টাকায় । কিছু সবজি ৫০ টাকার নিচে হলেও বেশির ভাগের দাম রয়েছে ৭০ থেকে ৮০ টাকায়। কিছু পণ্যের দাম কমলেও সব মিলিয়ে কিছুতেই স্বস্তি মিলছে না সাধারণ ক্রেতাদের।

Share.

Comments are closed.