নিজেদের কিছু ত্যাগ করে হলেও বাংলাদেশ ও ভারতের বন্ধুত্ব টিকিয়ে রাখতে হবে

0

প্রয়োজনে নিজেদের কিছু ত্যাগ করে হলেও বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার বন্ধুত্ব টিকিয়ে রাখতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন ডেপুটি স্পিকার মো. শামসুল হক টুকু। বৃহস্পতিবার রাজধানীর বনানীতে মৈত্রী দিবস উপলক্ষে সম্প্রীতি বাংলাদেশ’র আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার প্রণয় ভার্মা এ সময় তার আশাবাদের কথা জানিয়ে বলেন, একাত্তর থেকে গভীর হওয়া দুই দেশের সম্পর্ক আগামীতে আরও সুদৃঢ় হবে।

বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী দিবস উপলক্ষে সম্প্রীতি বাংলাদেশ আয়োজিত মিট দ্য সোসাইটির আলোচনা সভায় ডেপুটি স্পিকার বলেন, মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে, ভারতের বিরুদ্ধে তখনও অপশক্তি শক্তি ছিল, এখনো আছে। প্রজন্ম থেকে প্রজন্মের চ্যালেঞ্জ আসবে, এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে ঐক্যবদ্ধভাবে বাংলাদেশ-ভারতকে এগিয়ে যেতে হবে। দুই দেশের সম্পর্কে ভাবাবেগ, ইতিহাস, সংস্কৃতি জড়িয়ে আছে। দিনে দিনে এই দুই দেশের সোসাইটির বন্ধুত্ব শক্তিশালী হচ্ছে। আর সে কারণেই এখন বাংলাদেশ ও ভারত দুই গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার। চলমান বিশ্বে অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও সামাজিক দিক দিয়ে বাংলাদেশ-ভারত ঐক্যবদ্ধভাবে শক্তি সৃষ্টি করার আহ্বান জানান বক্তারা।

Share.

Comments are closed.